গ্রামের ৯৮ ভাগ মানুষ পানি সুবিধার আওতায় থাকলেও বর্তমানে দেশের প্রায় ২০ শতাংশ টিউবয়েলে আর্সেনিক বিদ্যমান এবং প্রকৃত নিরাপদ পানির আওতায় দেশের ৭৮ শতাংশ মানুষ।

সুপেয় বা নিরাপদ পানি প্রাপ্যতা এখনও দেশের কোথাও কোথাও মরিচীকা। পানির অধিকার ও এ সেক্টরের বাজেট বরাদ্দের তেমন কোনো উন্নতি লক্ষ করা যায়নি। পানিকে সম্পদ হিসাবে ঘোষণা করে এর উন্নয়নে সরকারী বাজেটে বিপুল পরিমান বরাদ্দের আহবান জানিয়েছেন এ সেক্টরের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

 


রোববার রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ দৃক গ্যালারীতে বেসরকারি সংস্থা ডরপ এর আয়োজনে ও অ্যাডভান্স অ্যান্ড প্রফেশনাল ফটোগ্রাফারস বাংলাদেশের সহযোগীতায় ‘পানি অধিকার’ শীর্ষক তিন দিনব্যাপী ছবি প্রদর্শণী উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথিরা এসব কথা বলেন।ডরপ’র প্রতিষ্ঠাতা ও গুসি আন্তর্জাতিক শান্তি পুরস্কার বিজয়ী এএইচএম নোমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী।


অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নেদারল্যান্ড দূতাবাসের প্রথম সচিব ও পানি বিশেষজ্ঞ কার্ল ডি গ্রুট, বিশিষ্ট আলোকচিত্রী আনোয়ার হোসেন। বক্তব্য রাখেন ডরপ’র সভাপতি মো. আজহার আলী তালুকদার, গবেষক মোহাম্মাদ যোবায়ের হাসান, অ্যাডভান্স অ্যান্ড প্রফেশনাল ফটোগ্রাফারস বাংলাদেশের অ্যাডমিন শামছুল হক সুজা, হেলাল রহমান, মোঃ আশেক উলৱা ওসমানী প্রমুখ।

প্রদর্শণীতে ‘পানি অধিকার’ বিষয়ে ২৪ জন আলোকচিত্রীর দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সংগ্রহীত ৮০টি ছবি স্থান পেয়েছে।