বাংলাদেশে জলবায়ূ পরিবর্তনের অভিঘাত মোকাবেলা, পরিবেশ সাংবাদিকতার বিভিন্ন দিক  নিয়ে গ্রীনবার্তা ডটকমের সম্পাদক ইমরান আনসারীর সাথে নিউ ইয়র্কে কথা বলেছিলেন বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি ও ক্লাইমেট নেগোসিয়েটর কামরুল ইসলাম চৌধুরী। নিম্নে সাক্ষাতকারটি পূর্নাঙ্গ প্রকাশিত হলো।
আপনি কিভাবে পরিবেশ সাংবাদিকতায় জড়িত হন?
১৯৮২ সালের দিকে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব শামস কিবরিয়া , পরিবেশ বিজ্ঞানী কে এম জালাল , সাংবাদিক এবিএম মুসা, বজলুর রহমান, আহম্মেদ নূরে আলমের প্রেরণায় পরিবেশ ও টেকসই উন্নয়র সাংবাদিকতায় ঝুঁকে পড়ি।

বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরমা গঠনের শুরুর দিকের কিছু কথা যদি একটু বলতেন।

১৯৮৩ সালে জাতিসংঘ এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসগরীয় অঞ্চলের অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদ -এর তদানীন্তন নির্বাহী পরিচালক শামস কিবরিয়ায়, এবিএম মূসা এবং আহমেদ নূরে আলমের প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরাম গঠিত হয়। 

পরিবেশ সাংবাদিকতা ফোরামের কার্যক্রম সম্পর্কে একটু বলবেন কি?
বাংলাদেশে পরিবেশ সাংবাদিক ফোরাম একসময়ে প্রতি বছর বাৎসরিক পরিবেশ চিত্র প্রকাশ করতো বাংলায় ও ইংরেজীতে। ইংরেজীতে ‍Annual statement of Environment Report যা সাংবাদিকরাই লিখতেন। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছেন সাংবাদিক এনায়াতুল্লাহ খান, মাহফুজ আনাম, গাজীউর রহমান, শিহাব উদ্দিন আহম্মেদ, নূওে আলম, সৈয়দ কামাল উদ্দিন আহম্মেদ, তাহমিনা সাইদ, চন্দন সরকার, আনোয়ার হোসেন মঞ্জ, ফজলুল বারী, মাহমুদ শফি, শামিম চৌধুরী, কাজী শাহনাজ, মইনুদ্দীন নাসের প্রমূখ। বাৎসরিক এই পরিবেশ চিত্র দেশে বিদেশে সাড়া জাগায়।
বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরাম বেশ কিছু ‘আর্থ ফাইল’ তৈরী করে যা বিটিভিসহ বিভিন্ন মিডিয়ায় প্রচারিত ও প্রকাশিত হয়। দু:খজনক হল্ওে সত্য যে আর্থিক সংকটের কারণে গত কয়েক বছর ধওে বাংলাদেশ পরিবেশ সাংবাদিক ফোরামের কার্যক্রম তেমন একটা নেই বললে চলে। যার ফলে পরিবেশ ও টেকসই উন্নয়ন সাংবাদিকতা নানামূখি সংকটে পড়েছে। পরিবেশ ও টেকসই উন্নয়ন সাংবাদিকতা নিয়ে নিয়মিত প্রশিক্ষন আয়োজন, ফিল্ড ভিজিট ও সরেজমিনে প্রতিবেদন প্রণয়ন ও কৌশল ইত্যাদির আয়োজনে ঘাটতি দেখা দিয়েছে। সে কারণে তরুন প্রজন্মের সাংবাদিকরা এই নতুন ধারার সাংবাদিকতা বিষয়ে হাতে কলমে প্রশিক্ষণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। পাশাপাশি বন্ধ রয়েছে বার্ষিক পরিবেশ চিত্র প্রকাশ।

Read more ...

James Edward Hansen is an American adjunct professor in the Department of Earth and Environmental Sciences at Columbia University. He was talking with WorldWatch Institute on Climate Change. 

World Watch: What led you to your 1988 testimony?

James Hansen: This was the culmination of years of work, going back at least to three papers between 1981 and 1982, [discussing] carbon dioxide and climate change in the journal Science, other trace gases in Geophysical Research Letters, and sea level, also published in Science. What was different in 1988 was that I had a more comprehensive paper completed and in press at Journal of Geographical Research, which was the attachment to my 1988 testimony.

Read more ...

The opening day of the Business & Climate Summit here in Paris has taught me a few things.

 

Firstly that everything sounds better in French, even "changement climatique."

 

Secondly, that the French serve wine with lunch, even during a stuffy business conference.

 

These two factors raise my confidence that the major government negotiation due to be held here in December might actually work. COP21 will be filled with slightly buzzed delegates glamoured by sexy French accents.

Read more ...