বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা)-র উদ্যোগের গত  ১৯ নভেম্বর ২০১৬, শনিবার, সকাল ১১.০০ টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে “পরিচ্ছন্ন ও টেকসই বাংলাদেশের জন্য নবায়নযোগ্য জ্বালানী” শীর্ষক আইইফা-র (Institute for Energy Economics and Financial Analysis) প্রতিবেদন প্রকাশ উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাপা’র সহ সভাপতি সৈয়দ আবুল মকসুদ। এতে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ (জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়), প্রকৌশলী বিডি রহমতুল্লাহ (অধ্যাপক, এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটি), অধ্যাপক বদরুল আলম (, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়), অধ্যাপক মোঃ সাইফুল হক ( সৌর জ্বালানী অনুষদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) এবং স্কাইপি’র মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন ও প্রশ্নোত্তরের জবাব দেন টিম বাকলি (পরিচালক, ফিনেন্স এনার্জি ষ্টাডিজ, আইইফা, অস্ট্রেলিয়া)। আইইফার এনার্জি ফিনেন্স স্টাডিজ এর পরিচালক-টিম বাকলি, এনার্জি ফিনেন্স এনালিস্ট-সিমোন নিকোলাস, এনার্জি ফিনেন্স এনালিস্ট সারা জানি আহমেদ এর নেতৃত্বে প্রনীত প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন বাপা’র যুগ্মসম্পাদক শরীফ জামিল।

Read more: বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য জালানির অপার সম্ভাবনা-বাপা

‘কোনো যুক্তি না থাকা সত্ত্বেও রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে একগুঁয়েমির পাশাপাশি সরকার আমাদের যুক্তি-তর্ক আলোচনা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে। দেশের মানুষের সঙ্গে প্রতারণা ও জালিয়াতি করতে চাইছে সরকার। সুন্দরবনের যেমন বিকল্প নেই, তেমনি এটি রক্ষার আন্দোলনে জয়ী হওয়ারও বিকল্প নেই।’

তেল-গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্যসচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আজ রোববার সন্ধ্যায় জাতীয় কমিটির খুলনা বিভাগীয় প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। জাতীয় কমিটির ২৪ নভেম্বর ‘চলো চলো ঢাকায় চলো এবং ২৬ নভেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশ’ সামনে রেখে এই বিভাগীয় প্রতিনিধি সভার আয়োজন করা হয়। খুলনা প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত এই সভায় খুলনার বিভিন্ন জেলার প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

Read more: রামপাল নিয়ে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করছে সরকার-আনু মুহাম্মদ

রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের তেজস্ক্রিয় জ্বালানি বর্জ্য রাশিয়া ফেরত নেবে না মর্মে প্রকাশিত সংবাদে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বিশিষ্ট নাগরিকগণ উক্ত বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ পরিবেশ ও নিরাপত্তাজনিত সকল প্রকার ঝুঁকি নিরসনমূলক ব্যবস্থা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত কোনভাবেই অগ্রসর না হবার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন।

আজ এক বিবৃতিতে বিশিষ্ট নাগরিকবৃন্দ বলেন, “পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র আইন ২০১৫'র ৭ (৪) অনুযায়ী পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে পারমাণবিক নিরাপত্তার বিষয়টিকে সর্বাধিক অগ্রাধিকার দিতে হবে, এবং ৭ (৫) ও (৬) অনুযায়ী পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে উদ্ভুত সকল তেজস্ক্রিয় বর্জ্যের হ্যান্ডলিং, ট্রিটমেন্ট, কন্ডিশনিং এবং ডিসপোজাল নিশ্চিত করে তেজস্ক্রিয় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রতিষ্ঠা করতে হবে। বিভিন্ন সময়ে প্রদত্ত সরকারি ভাষ্য অনুযায়ী এ বর্জ্যরে সম্পূর্ণ ব্যবস্থাপনার দায়ভার গ্রহণ করবে চুক্তিভুক্ত রাশিয়ার কোম্পানী। অথচ তেজস্ক্রিয় বর্জ্য ফেরত নেয়ার ব্যাপারে রাশিয়া বাস্তবে রূপপুর প্রকল্পের তেজস্ক্রিয় বর্জ্য সংরক্ষণের দায়িত্ব বাংলাদেশের উপর চাপিয়ে দিতে চাইছে, যা বাংলাদেশের পক্ষে কোন অবস্থায়ই গ্রহণযোগ্য হতে পারে না, সম্ভবও নয়।”

Read more: ঝুঁকিপূর্ণ রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের চুক্তি বাতিলের আহ্বান টিআইবি’র

সুন্দরবন রক্ষা করা না গেলে বাংলাদেশকে রক্ষা করার কোনো উপায় নেই বলে ঐতিহাসিক মন্তব্য করে গেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান । সুন্দরবনকে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের হাত থেকে রক্ষার প্রধান রক্ষাকবচ হিসেবেও তুলে ধরেন বঙ্গবন্ধু। ১৯৭২ সালের ১৬ জুলাই ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধু বৃক্ষরোপণ সপ্তাহ উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। শুধু তাই নয় জলবায়ুর পরিবর্তনের প্রভাবের বিষয়েও দেশবাসীকে সতর্ক করেন সাবেক এই মহান নেতা। 

Read more: `সুন্দরবন রক্ষা করা না গেলে বাংলাদেশকে রক্ষা করা যাবে না': বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান

রামপালেই বিদ্যুৎ প্রকল্প হবে-শেখ হাসিনার (প্রধানমন্ত্রী) এ রকম বক্তব্য রাষ্ট্রবিরোধী কাজ। এ রকম কাজ তারা (সরকার) করতে পারে না। এটা তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি নয় বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, সর্বনাশ থেকে দেশ বাঁচাতে এবং নিজেদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ওইসবের বিরুদ্ধে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। সকলে ঐক্যবদ্ধ হলে এরা পিছু সরে যেতে বাধ্য হবে। গতকাল বিকালে সংবাদ সম্মেলনে রামপালে তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া বক্তব্যের পর রাতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সঙ্গে এক শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে ওই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, যিনি বলছেন বা যে দল এটা (রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র প্রকল্প) করছেন, এরা রাষ্ট্রবিরোধী, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে কাজ করছেন। তার জবাব হয়ত তাদের ক্ষমতায় থেকে দিতে হচ্ছে না, কিন্তু ক্ষমতার বাইরে গেলে এদেরকে প্রতিটি মানুষের কাছে জবাব দিতে হবে।

Read more: ‘রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র হবে’ প্রধানমন্ত্রীর এ রকম বক্তব্য রাষ্ট্রবিরোধী : খালেদা জিয়া