প্যারিসে  বিশ্বজলবায়ু সম্মেলন কোপ ২১  শুরুর মাত্র ২০ দিন আগে দেশটিতে ব্যাপক ভিত্তিক হামলার ঘটনায় চ্যালেঞ্জের মূখে পড়েছে আসন্ন সম্মেলন। এপর্যন্ত হামলার ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ১৬০ ছাড়িয়েছে। জারি করা হয়েছে জরুরি অবস্থা। এমনি একটি বাস্তবতায় আসন্ন প্যারিস সম্মেলনের সার্বিক ব্যবস্থায় প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন পরিবেশ বিজ্ঞানীরা। হামলাটি এমন একদিনে করা হলো যেদিন সম্মেলনের নিরাপত্তা জোরদারে ত্রিশ হাজার নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যকে মোতায়েন করল ফ্রান্স সরকার। এ হামলার পর সম্মেলনটি আদৌ প্যারিসে অনুষ্ঠান সম্ভব কিনা তা নিয়ে জল্পনা কল্পনা শুরু হয়েছে। কারণ নিরাপত্তার অযুহাতে গুরুত্বপূর্ন  দেশের রাষ্ট্র প্রধান ও বিশেষজ্ঞরা যদি সম্মেলনে না আসেন তাহলে এমনিতেই সম্মেলন অকার্যকর হয়ে পড়বে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

 

 ফ্রান্সের  স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী বার্নার্ড কাজিনোভের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী  ১৩ নভেম্বর থেকে এক মাসের জন্য ফ্রান্সের  সীমানায় নিরাপত্বা তল্লাশী জোরদার করা হয়েছে। বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ জলবায়ু সম্মেলন আগামী ৩০ নভেম্বর প্যারিসের উত্তরে বুরজে(Bourget) এলাকায় শুরু হতে যাচ্ছে। সম্মেলনটি ৩০ নভেম্বর থেকে শুরু হয়ে ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চলবে।

ফ্রান্সের এই নিরাপত্বা তল্লাশির কাজে ইতি মধ্যে নিরাপত্বা বাহিনীর প্রায় ৩০০০০ ( ত্রিশ হাজার) সদস্যকে ২৮৫টি গুরুত্ব পূর্ণ পয়েন্টে মোতায়েন করা হয়েছে। এরই মধ্যে তারা ব্রুক্সেল, জার্মান, স্পেন এবং ইতালি সীমানায় তল্লাশী শুরু করেছে। সীমানা ছাড়াও ফ্রান্সের প্রায় প্রত্যেকটি আন্তর্জাতিক ট্রেন স্টেশান, গুরুত্ব পূর্ণ স্থাপনা ও সম্মেলনের আশপাশের এলাকা এই নিরাপত্বা ব্যবস্থার আওতায় থাকবে।

এবারের প্যারিস জলবায়ু সম্মেলনে বিশ্বের প্রায় ১০০ টি দেশের রাষ্ট্র প্রধানদের অংশ গ্রহণের কথা রয়েছে। এছাড়া  ১৯৫ জনের অধিক আন্তর্জাতিক ডেলিগেটদের  উপস্থিতির বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে।ইতি মধ্যে যুক্ত রাষ্ট্রের ও চীনের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও ঝি জিনপিং সম্মেলনে উপস্থিত থাকার ঘোষণা দিয়েছেন। ভারতের প্রধান মন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিত থাকার বিষয়টিও নিশ্চিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য ৭ ডিসেম্বর থেকে প্যারিসে সম্মেলনটি অনুষ্ঠানের কথা রয়েছে।