জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঝুঁকির মুখে থাকা বাংলাদেশকে বিশ্ববাসী রক্ষা করবে-এমন আশায় বসে নেই এই দেশ। বরং সীমিত সম্পদ ও প্রযুক্তি নিয়ে বাংলাদেশ নিজেই নিজের ভবিষ্যতের জন্য যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছে। আর এ কারণেই বাংলাদেশ হচ্ছে উন্নয়নশীল বিশ্বের প্রথম দেশ, যে নিজস্ব অর্থায়নে জলবায়ু পরিবর্তন কৌশল ও কর্মপরিকল্পনা তৈরি করেছে। একই কারণে পরিবেশের উন্নয়ন ও প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণে সংবিধান পরিবর্তনসহ বেশ কিছু আইনও প্রণয়ন করেছে।

Read more: প্রধানমন্ত্রীর নিবন্ধ : জলবায়ু দুর্যোগে বিশ্বের অপেক্ষায় বসে নেই বাংলাদেশ

Entries are open for the Global Environmental Prize by the University of St Andrews and independent exploration and production company ConocoPhillips. The prize is inviting individuals, multi-disciplinary teams or community groups with an objective to find innovative solutions to environmental challenges.

Read more: Global Environmental Prize announces

Write your best climate change story and get an opportunity to join and cover COP21
While climate change is a global phenomenon, it is hitting the world’s poorest regions - and most marginalized communities - the hardest. These changing conditions are impacting human health, economic activity, and are threatening basic human rights including access to water and food security. Climate change is already affecting local communities in low and middle income countries but stories on the negative impacts as well as on the solutions that governments, communities and individuals are implementing often get lost in the global climate change debate.

Read more: Climate Change Storytelling Contest

জাতিসংঘের ‘চ্যাম্পিয়ন অফ দ্যা আর্থ’ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন বাংলাদেশের প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। পলিসি লিডারশীপ ক্যাটগরিতে এবারের এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন তিনি। রোববার ইউএনইপির ওয়েভ সাইটে ২০১৫ সালের ‘চ্যাম্পিয়ন অফ দ্যা আর্থ’ পুরস্কার ঘোষিত হয়। জলবায়ু পরিবর্তনের অভিঘাত মোকাবেলায় রাষ্ট্রীয় নীতি নির্ধারণীর ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা রাখার স্বীকৃতি হিসেবে তাঁকে এ পুরস্কারের জন্য এবছর এ মনোনয়ন দেয়া হয়।
চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক সর্বোচ্চ সম্মান। পরিবেশ বিষয়ে ইতিবাচক ভূমিকা পালনকারী চারটি ক্যাটাগরিতে এ পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।
পুরস্কারটির আয়োজন করে জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক সংস্থা ইউনাইটেড নেশনস এনভায়রমেন্টাল পোগ্রাম (ইউএনইপি)। পরিবেশের প্রতি নিবেদিতপ্রাণ এমন সব মানুষ  ও সংগঠন যাদের উদ্যোগের ফলে পারিবেশে ইতিবাচক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে,তাদেরকেই এ পুরষ্কারের জন্য মনোনয়ন দেয়া হয়।

Read more: জাতিসংঘের চ্যাম্পিয়ন অফ দ্যা আর্থ পুরস্কারে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী

তুরস্কে সম্প্রতি এক সেমিনারে অংশ নেন প্রায় ৬০ জন মুসলিম নেতা৷ দুদিনের অনুষ্ঠান শেষে একটি ‘ডিক্লারেশন' প্রকাশিত হয়৷ তাতে ২০৫০ সালের মধ্যে গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমন বন্ধ করতে শিল্পোন্নত ও তেল উৎপাদনকারী দেশের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে৷ এছাড়া বিশ্বের সকল মুসলমানদের প্রতিও যে যার অবস্থান থেকে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় কাজ করার আহ্বান জানানো হয়েছে৷ এক্ষেত্রে মহানবীর (সাঃ) পথ অনুসরণ করার কথাও বলা হয়েছে ঐ ঘোষণাপত্রে৷

সেমিনারে অংশ নেয়া কেনিয়ার মোহাম্মদ আদৌ আশা করছেন, এই ঘোষণাপত্র মুসলিম বিশ্ব, বিশেষ করে তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোকে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় ভূমিকা রাখতে উৎসাহিত করবে৷

Read more: জলবায়ূ পরিবর্তন নিয়ে এবার মূখ খুললেন বিশ্বের ইসলামি বিশেষজ্ঞরা